আন্তর্জাতিক

পুলিশ ইউনিফর্মেই হিজাব! অভিনব কীর্তি নিউজিল্যান্ডের মুসলিম তরুণীর

মহানগরবার্তা ওয়েবডেস্ক: বাড়ির বাইরে বেরোলে হিজাব পড়তে হয় মুসলমান মেয়েদের। তাই ধর্মীয় অনুশাসনের বেড়াজালের মধ্যে থেকে প্রাতিষ্ঠানিক পেশায় এগিয়ে আসতে ইতস্তত করেন অনেকেই। বিশেষ করে পুলিশ, সেনাবাহিনী বা অন্যান্য প্রতিরক্ষামূলক পেশার ক্ষেত্রে মুসলমান মেয়েদের সংকোচটা যেন কিছু বেশিই। কিন্তু সেই সংকোচকেই এবার অভিনব মর্যাদার আসনে বসালেন নিউজিল্যান্ডের এক মুসলমান তরুণী।

জানা গেছে, জিনা আলি নামের নিউজিল্যান্ডের এক তরুণী পুলিশের ইউনিফর্মের সঙ্গেই হিজাবকে সংযুক্ত করেছেন। তিনিই পুলিশ ডিপার্টমেন্টের প্রথম সদস্য যিনি বিশেষ ভাবে তৈরি একটি হিজাব পড়লেন যা আদতে পুলিশেরই ইউনিফর্ম। তাঁর এই অভিনব কীর্তি ভবিষ্যতে আরও অনেক মুসলিম মেয়েদের পুলিশ ডিপার্টমেন্টে যোগ দিতে অনুপ্রাণিত করবে বলেই মনে করছে বিশেষজ্ঞ মহল।

বছর তিরিশের জিনা আলি নিউজিল্যান্ডের পুলিশ ফোর্সের কনস্টেবল। গত বছর নিউজিল্যান্ডের ক্রাইস্টচার্চে জঙ্গি হামলার পর সেদেশের মুসলিম সমাজের মনোবলকে দৃঢ় করে তাঁদের সাহায্যের জন্যেই পুলিশ ফোর্সে যোগ দেওয়ার সিদ্ধান্ত নেন তিনি। ক্রাইস্টচার্চের ওই জঙ্গি হামলায় নিউজিল্যান্ডের দুটি মসজিদ মিলে প্রায় ৫১ জন মানুষের মৃত্যু হয়েছিল। ‘নিউজিল্যান্ড হেরল্ড’-এর রিপোর্ট অনুযায়ী, চলতি সপ্তাহেই পুলিশ ফোর্সে তাঁর যাত্রা শুরু হবে। অভিনব হিজাব ইউনিফর্ম পুলিশ অফিসার হিসেবে ইতিহাসে লেখা থাকবে জিনা আলির নাম।

সূত্রের খবর, পুলিশ ডিপার্টমেন্টের সঙ্গে পরামর্শ করে জিনা অভিনব এই পোশাকের নির্মাণ করিয়েছেন, যা তাঁর নতুন পেশার সঙ্গে একাধারে তাঁর ধর্মীয় পরিচয়ের বার্তাও বহন করবে। তাঁর কথায়, “নিউজিল্যান্ড পুলিশের এই হিজাবকে বিশ্বের সামনে তুলে ধরতে আমার ভীষণ ভালো লাগছে, কারণ এর ডিজাইন প্রক্রিয়ায় আমিও অংশ নিয়েছিলাম।” সেই সঙ্গে নিজেকে ধর্ম পরিচয় এবং বিশেষত নারী পরিচয়ের এই প্রতিনিধিত্ব করতে পেরে যে তিনি গর্বিত, তাও জানিয়েছেন জিনা আলি। শুধু তাই নয়, তাঁর এই কীর্তি যে ভবিষ্যতে আরো মুসলমান নারীকে পুলিশ ফোর্সে যোগ দিতে উৎসাহী করবে সে বিষয়েও আশাবাদী তিনি।

Tags

Related Articles

Leave a Reply

Your email address will not be published.

Back to top button
নিজের লেখা নিজে লিখুন
Close
Close