দেশ

‘ক্ষমা চাইবো না, জরিমানা’ও দেব না’, অর্ণবের জামিন নিয়ে সমালোচনার পর দাবি কুনালের

মহানগরবার্তা ওয়েবডেস্ক: অর্ণব গোস্বামীর জামিন প্রসঙ্গে আদালত বিরোধী মন্তব্যের জেরে তৈরি হওয়া বিতর্ক নিয়ে অবশেষে মুখ খুললেন কুনাল কামরা। মুম্বাইয়ের এই কমেডিয়ান এদিন সোশ্যাল মিডিয়ায় এ বিষয়ে নিজের বক্তব্য জানিয়ে একটি পোস্ট করেন। সেই পোস্টে তিনি সাফ জানিয়ে দিয়েছেন, তাঁর কোনো মন্তব্যের জন্যেই তিনি দুঃখিত নন।

শুক্রবার বেলা ১২:৩৭ নাগাদ নিজের ট্যুইটার হ্যান্ডেল থেকে একটি পোস্ট করেন কুনাল কামরা। সেই পোস্টে তিনি মাননীয় সুপ্রিম কোর্টের বিচারপতিগণ এবং অ্যাটর্নি জেনারেল কে কে বেণুগোপালকে উদ্দেশ্য করে একটি চিঠির ছবি শেয়ার করেন। ওই চিঠিতেই সাম্প্রতিক বিতর্ক নিয়ে নিজের অবস্থান স্পষ্ট করেন ৩২ বছর বয়সী এই কমেডিয়ান। সেই সঙ্গে ট্যুইটে তিনি লেখেন, “কোনো উকিল নয়, কোনো ক্ষমা প্রার্থনা নয়, কোনো জরিমানা নয়, কোনো স্থানের অপব্যয় নয়।”

বস্তুত, অর্ণব গোস্বামীর জামিন প্রসঙ্গে সুপ্রিম কোর্টের সমালোচনা করে যে তিনি আদেও কোনো অন্যায় করেননি, তাঁর দীর্ঘ চিঠিতে সে কথাই জানিয়েছেন কুনাল কামরা। তাঁর মতে, “অন্যান্য নানা ব্যক্তিগত স্বাধীনতার মামলা প্রসঙ্গে সুপ্রিম কোর্টের নীরবতা সমালোচনারই যোগ্য।” শুধু তাই নয়, এই মুহূর্তে দেশের অন্যান্য নানা বিষয় যে অর্ণব গোস্বামীর ঘটনার চেয়েও বেশি করে শীর্ষ আদালতের হস্তক্ষেপ দাবি করে, সে কথাও জানান কুনাল কামরা।

তিনি বলেন, “নোটবন্দীর পিটিশন, জম্মু ও কাশ্মীরের বিশেষাধিকার বিলোপ সংক্রান্ত পিটিশন, একাধিক নির্বাচনী জোটের বৈধতা সংক্রান্ত পিটিশন এবং আরো অজস্র অন্যান্য বিষয় অনেক বেশি গুরুত্বপূর্ণ।” সিনিয়র অ্যাডভোকেট হরিশ সালভেকে উদ্দেশ্য করে তিনি বলেন, “সেই সব গুরুত্বপূর্ণ বিষয়ে যদি সময় দেওয়া যায়, তবে কি পৃথিবী উল্টে যাবে?”

প্রসঙ্গত উল্লেখ্য, বুধবার রিপাবলিক টিভির অন্যতম প্রধান সঞ্চালক অর্ণব গোস্বামীর অন্তর্বর্তীকালীন জামিন সুপ্রিম কোর্ট মঞ্জুর করার পরই সোশ্যাল মিডিয়ায় একের পর এক বিদ্রূপাত্মক পোস্ট করেছিলেন তিনি। তার জেরেই কুনাল কামরার বিরুদ্ধে আদালত অবমাননার মামলা করার অনুমতি দেন অ্যাটর্নি জেনারেল কে কে বেণুগোপাল। সূত্রের খবর অনুযায়ী, আইনের এক ছাত্র এবং আরো দুই আইনজীবীসহ মোট আট জন কমেডিয়ান কুনাল কামরার বিরুদ্ধে আদালত অবমাননার মামলা করার জন্য অ্যাটর্নি জেনারেল কে কে বেণুগোপালের সম্মতি চেয়েছিলেন।

Tags

Related Articles

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *

Back to top button
Close
Close