ঢ্যাং-কুরাকুর

প্যান্ডেলে ঘুরে বেড়ানো নয়, পুজো মানে আমার কাছে বাড়িতে থাকা: অভিনেতা সাহেব হালদার

কলঙ্কিনী রাধার শুটিং-এ খুবই ব্যস্ত। তার মাঝেই কিছুটা সময় বের করে মহানগর বার্তার প্রতিনিধি সায়ন্তন সেনের সঙ্গে নিজের দুর্গাপুজোর প্ল্যান নিয়ে এক্সক্লুসিভ আড্ডা দিলেন অভিনেতা সাহেব হালদার।

প্রশ্ন : তোমার এবারের পুজোর প্ল্যান কী?

সাহেব : পুজো মানে এই নয় যে প্যান্ডেলে প্যান্ডেলে ঘুরে বেড়ানো। পুজো মানে আমার কাছে সারা দিনটা বাড়িতে থাকা। অমিত আচার্য দা, সুরজিৎ এবং তুষারের সঙ্গে ভাল সময় কাটবে। পুজোতে আমি খুব কম ঠাকুর দেখি। পঞ্চমী, ষষ্ঠী পর্যন্ত আমাদের শুটিং চলে। এবছরেও পুজোয় খুব হেকটিক সিডিউল রয়েছে।

প্রশ্ন : বাড়িতে পুজোটা কীভাবে উপভোগ করো?

সাহেব : খাওয়া-দাওয়া হয়। বন্ধুদের সঙ্গে আড্ডা দিই। হয়তো দশমীর দিনে ঠাকুরটা দেখতে যাওয়া হয়। তাও বাড়ির কাছের ঠাকুরগুলো দেখতে যাই।

প্রশ্ন : কোভিড পরিস্থিতিতে এবার পুজোতে অন্য কিছু কী পরিকল্পনা রয়েছে?

সাহেব : এবারে আরও মজা হবে। আমি আমার ফ্ল্যাটটা শিফ্ট করেছি। আমার জানালার সামনেই পুজো হচ্ছে। আমার জানালা থেকেই প্যান্ডেলটা দেখা যায়। এবছর অনেকটা রাত জাগবো। তবে তার মানে রাত জেগে ঠাকুর দেখা নয়।

প্রশ্ন : এবছর পুজোর আগে সাহেব হালদার এতো প্রোজেক্ট নিয়ে ব্যস্ত। পুজোটা কতটা স্পেশাল?

সাহেব : না সেটা নয়। তবে হ্যাঁ পুজোর আগে আমার বেশ কয়েকটি প্রোজেক্ট আসছে। আসছে বছর আবার হবে পার্ট ২, শব, সত্যজিৎ দাসের কলঙ্কিনী রাধার শুটিং চলছে। পুজোর আগে একটা প্রোজেক্ট শুরু হওয়ার কথা।

প্রশ্ন : পুজোর আগের প্রোজেক্টটা নিয়ে আমরা কী কিছু জানতে পারি?

সাহেব : আশা করছি এই প্রোজেক্ট টা তোমাদের ভাল লাগবে। এটা বেসিক্যালি থ্রিলার একটা ওয়েব সিরিজ। এই থ্রিলার ওয়েব সিরিজে মার্ডার, রহস্য, ভালবাসা সবকিছুর বন্ধনে জড়িয়ে আছি আমি। (বাকি নামগুলো সাহেব বলতে চাইছিল না, কিন্তু অনেক বলার পর জানাল) এই ওয়েব সিরিজে রাহুল অরুণোদয় ব্যানার্জি রয়েছেন। এছাড়া আরও কিছু পরিচিত মুখ আছেন। এইটুকু এখন বলতে পারি।

Related Articles

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *

Back to top button
Close
Close