fff
দেশ

“আমার পেন্সিল, রাবারের দামও বেড়ে গেছে”, প্রধানমন্ত্রীকে (PM Narendra Modi) চিঠি লিখে আর্তি ছয় বছরের খুদের 

মহানগর বার্তা ওয়েবডেস্কঃ সংসদের চলতি বাদল অধিবেশনে জিএসটি (GST) খাতা, বই, রাবার, পেন্সিলেও।যার ফলে বিরোধীরা দুষছেন প্রধানমন্ত্রী নরেন্দ্র মোদিকে(PM Narendra Modi)। এবার উত্তরপ্রদেশের বছর ছয়ের এক বালিকা চিঠি লিখে অভিযোগ জানালো প্রধানমন্ত্রীকে (PM Narendra Modi)। বিভিন্ন নিত্যপ্রয়োজনীয় দ্রব্যে জিএসটি (GST) চাপানোর ফলে উত্তাল হয়েছিলো সংসদের বাদল অধিবেশন। পরে বিরোধীদের প্রশ্নের মুখে কিছুটা পিছু হটেন অর্থমন্ত্রী নির্মলা সীতারমন। প্যাকেটজাত নয়, এমন দ্রব্যে জিএসটি লাগু হবেনা বলে ঘোষণা করেন তিনি। কিন্তু লেখাপড়ার সামগ্রীর ক্ষেত্রে কোনো ছাড় দেওয়া হয়নি। স্বাভাবিকভাবেই বিপুল খরচ বেড়ে গেছে খাতা, পেন্সিল, রাবারের। যার জেলে Social media তে নেটিজেনদের ক্ষোভের মুখে পড়েছে কেন্দ্রের সিদ্ধান্ত। জানা যায়, কোভিড মহামারীতে আর্থিক অনটনের কারনে সরকারী হিসাবেই প্রায় শতকরা পঁচিশ শতাংশ ছাত্রছাত্রী শিক্ষাক্ষেত্র থেকে দূরে সরে যেতে বাধ্য হয়েছে। এর মধ্যে শিক্ষা সামগ্রীতে জিএসটি চাপিয়ে, তার মূল্যবৃদ্ধিকে ভালো চোখে দেখছেনা বিরোধীরা। দেশজুড়ে লাগাতার নিত্য প্রয়োজনীয় দ্রব্যের মূল্যবৃদ্ধির বিরুদ্ধে ইতিমধ্যেই সরব বিরোধীরা। তারওপর শিক্ষাসামগ্রীর এই মূল্যবৃদ্ধি, অনেক ছাত্রছাত্রীদেরই শিক্ষাক্ষেত্র থেকে দূরে সরিয়ে দেবে বলে দাবি বিরোধীদের। এই পরিস্থিতিতেই সামাজিক মাধ্যমে(social media) ছড়িয়ে পড়েছে ছয় বছরের কৃতি দুবে’র প্রধানমন্ত্রী মোদিকে(PM Narendra Modi) লেখা চিঠি।

কে কৃতি দুবে?

উত্তরপ্রদেশের কনৌজ জেলার ছিবরামৌ শহরের বাসিন্দা কৃতি দুবে। প্রথম শ্রেণির ছাত্রী কৃতি। মাত্র ছয় বছর বয়সেই প্রধাণমন্ত্রীকে চিঠি লিখে শোরগোল ফেলে দিয়েছে কৃতি। তার লেখা একটি চিঠি ছড়িয়ে পড়েছে Social Media তে। বহু মানুষ ইতিমধ্যেই লাইক, কমেন্ট শেয়ারের বন্যায় ভাসিয়ে দিচ্ছেন খুদের এই করুন আর্তিকে।

চিঠিতে কী লিখেছেন খুদে কৃতি?

ছয় বছরের কৃতি তার চিঠির মাধ্যমে প্রধানমন্ত্রীকে জানিয়েছেন, শিক্ষাসামগ্রীর মূল্যবৃদ্ধির ফলে তার পড়াশুনায় অসুবিধার কথা। চিঠিতে কৃতি লিখেছে, “আমার নাম কৃতি দুবে। আমি প্রথম শ্রেণির ছাত্রী। এই ভয়াবহ মূল্যবৃদ্ধির জন্য মোদিজী আপনি দায়ী। এমনকি আমার পেন্সিল আর রাবারের দামও বেড়ে গেছে, আর ম্যাগিরও দাম বাড়ছে। এখন একটা পেন্সিল কিনে দিতে বললে আমার মা আমাকে মারে। আমি এখন কী করবো? বাকি বাচ্চারা আমার পেন্সিল চুরি করে নেয়।”

কৃতি এই চিঠি লিখেছে হিন্দিতে। হিন্দিতে লেখা এই চিঠি দ্রুতই ছড়িয়ে পড়েছে সামাজিক মাধ্যমে(social media)। ছোট্ট মেয়ের প্রধানমন্ত্রীকে লেখা এই চিঠি নিয়ে চলছে জোর চর্চা। ছয় বছরের বালিকা তার মতো করে, তার সমস্যা যেভাবে প্রধানমন্ত্রী মোদিকে(PM Narendra Modi) লিখে জানিয়েছে, তাতে তার তারিফ  করছেন বাকিরা। শিশুদের শিক্ষাসামগ্রীর মূল্যবৃদ্ধিতে ‘অসন্তুষ্ট’ অনেকেই সামাজিক মাধ্যমে(Socil Media) ছড়িয়ে দিচ্ছেন এই চিঠি। তাই ভাইরাল হতে দেরি হয়নি কৃতির লেখা চিঠির।

কৃতির বাবা বিশাল দুবে, পেশায় একজন আইনজীবি। একটি সর্বভারতীয় সংবাদপত্রের সঙ্গে কথা বলার সময় তিনি জানান, “এটা আমার মেয়ের ‘মন কি বাত'(Mann ki baat)। সম্প্রতি স্কুলে পেন্সিল হারানোর জন্য তার মা তাকে বকাবকি করে। তখন সে অসন্তুষ্ট হয়।”

কৃতি দুবের ‘মন কি বাত'(Mann ki baat) নিয়ে এখন চর্চা চলছে সামাজিক মাধ্যমে(social media)। ছিবরামৌ এর সাব ডিভিশনাল ম্যাজিস্ট্রেট অশোক কুমারের নজরেও এসেছে কৃতির লেখা এই চিঠি। সর্বভাবরতীয় দৈনিকটির সাংবাদিকের সঙ্গে কথা সূত্রে অশোক কুমার জানান, “আমি যেভাবেই হোক ওই শিশুটিকে সাহায্য করতে প্রস্তুত। এবং তার চিঠি যাতে সংশ্লিষ্ট কর্তৃপক্ষের কাছে পৌঁছায় সেই বিষয়েও আমি সর্বোচ্চ চেষ্টা করবো।”

কৃতিই প্রথম নয়, যে প্রধানমন্ত্রী মোদিকে(PM Narendra Modi) চিঠি লিখে ভাইরাল হয়েছে। ২০২১ সালেও জুন মাসে, জম্মু কাশ্মীরের একটি বছর ছয়ের বালিকার ভিডিও Social Media তে ভাইরাল হয়। কোভিড মহামারীর সময়ে অনলাইন ক্লাস নিয়ে তার অসন্তুষ্টির কথা জানিয়েছিলো সে। যেখানে সে তার হোমওয়ার্ক এবং ক্লাশের লম্বা সময় নিয়েও অভিযোগ জানায়।

সেই ভিডিও ভাইরাল হওয়ার আটচল্লিশ ঘন্টার মধ্যেই, জম্মু-কাশ্মীরের লেফটেন্যান্ট গভর্নর মনোজ সিনহা হস্তক্ষেপ করেন। তিনি স্কুল শিক্ষা দপ্তরে একটি একটি নিয়মবিধি খসড়া আকারে পাঠান। সেখানে তিনি স্কুলের হোমওয়ার্কের বোঝা কমানোর নির্দেশ দেন। এবং বলেন “শৈশব হলো ঈশ্বরের দান এবং প্রাণবন্ত, উচ্ছ্বল ও আনন্দময়”। সেই সময়েও এই ভাইরাল হওয়া ভিডিও নিয়ে যথেষ্ট চর্চা হয় দেশজুড়ে।

কৃতি দুবের (Mann ki baat) এই চিঠি ভাইরাল হওয়ার সঙ্গে অনেকেই জম্মু-কাশ্মীরের সেই শিশুটির ভিডিওর মিল পাচ্ছেন। তবে কৃতি যেভাবে প্রধানমন্ত্রী মোদিকে(PM Narendra Modi) সরাসরি তার চিঠি লিখেছে, তাতে অবাক অনেকেই। এখন দেখার বিষয় ছোট্ট কৃতির ‘মন কি বাত'(Mann ki baat) কতোটা সমাধান করে তার সমস্যার! স্কুলছুট শিশুদের শিক্ষাক্ষেত্রে ফিরিয়ে আনার জন্য দাবি তুলেছেন দেশের শিক্ষাবিদরা। নতুন জাতীয় শিক্ষানীতি নিয়েও বিতর্ক শুরু হয়েছে দেশজুড়ে। শিক্ষার খরচ বাড়ছে বলে বারংবার অভিযোগ করছে বিরোধীরা। শিক্ষা সামগ্রীতে জিএসটি (GST) চাপানোর বিরোধীতাও বারবার করে এসেছে বিরোধীরা। তার মধ্যেই কৃতি দুবের (Mann ki baat) এই চিঠি নতুন করে রসদ জোগালো দেশের শিক্ষা পরিস্থিতি নিয়ে সাম্প্রতিক বিতর্কে।

Tags

Related Articles

Leave a Reply

Your email address will not be published.

Back to top button
Close
Close

Adblock Detected

Please Disable your ADBlocker!