দেশ

নীতীশের ভূয়সী প্রশংসা, বিহারে প্রথম দফা ভোটের দিনই ফের প্রচারে নামলেন প্রধানমন্ত্রী

মহানগরবার্তা ওয়েবডেস্ক: বিহার বিধানসভা নির্বাচনের দ্বিতীয় দফার ভোট প্রচারে এবার মাঠে নামলেন স্বয়ং প্রধানমন্ত্রী নরেন্দ্র মোদী। এদিন সকালে দ্বারভাঙ্গা, মিথিলা প্রভৃতি একাধিক জায়গায় নির্বাচনী প্রচারের উদ্দেশ্যে গিয়েছিলেন তিনি। তাঁর বক্তব্যে একদিকে যেমন ছিল বিরোধী দলগুলির প্রতি কটাক্ষ, অন্যদিকে তেমনই বিহারবাসীকে নানাবিধ সুযোগ সুবিধা প্রদানের আশ্বাসও দিয়েছেন প্রধানমন্ত্রী।

বুধবার বিহারের মিথিলায় নির্বাচনী প্রচারে গিয়ে বিহারের বর্তমান মুখ্যমন্ত্রী নীতীশ কুমারকেই পরবর্তী মুখ্যমন্ত্রী হিসেবে ফের বিপুল ভোটে জয়ী করার আর্জি জানিয়েছেন প্রধানমন্ত্রী। এনডিএ জোটের হয়ে এদিন তিনি প্রচারে নেমেছিলেন। এই নিয়ে বিহারে ভোটের প্রচারের জন্য দ্বিতীয় বার হাজির হলেন প্রধানমন্ত্রী। তাঁর সভায় উপস্থিত ছিলেন মুখ্যমন্ত্রী নীতীশ কুমারও।

এদিন অযোধ্যায় রাম মন্দির নির্মাণ প্রসঙ্গে মন্তব্য করতে গিয়ে এদিন প্রধানমন্ত্রী বলেন, “বিজেপি যা বলে তা কাজেও করে দেখায়। মা সীতা এখন অযোধ্যা দেখে খুশি হবেন। তাঁর জন্মস্থান মিথিলার অবস্থা দেখেও খুশি হবেন।” এরপরেই মুখ্যমন্ত্রী নীতীশ কুমারের প্রশংসা করে তিনি বলেন, “গত ১৫ বছর ধরে নীতীশ কুমারের নেতৃত্বেই উন্নয়নের পথে চলছে বিহার।”

এছাড়াও এদিন দ্বারভাঙাতে দ্বিতীয় দফায় ভোট প্রচারে গিয়েছিলেন প্রধানমন্ত্রী। সেখানে গিয়ে তিনি ঘরে ঘরে পানীয় জল পৌঁছে দেওয়ার প্রতিশ্রুতিও দিয়েছেন। তিনি বলেন, “ঘরে ঘরে পাইপের দ্বারা পানীয় জল পৌঁছাবে বিহারে। কোনও মাকে তাঁর সন্তানকে হারাতে হবে না। আমরা এই সংকল্প নিয়েছি এবং পূরণ করে দেখাব।” বস্তুত বিহারের নির্বাচনী ইস্তেহারে বিজেপির তরফে যা যা প্রতিশ্রুতি দেওয়া হয়েছে, তা অক্ষরে অক্ষরে পূরণ করে দেখাবেন, এমনটাই আশ্বাস দিয়েছেন প্রধানমন্ত্রী।

প্রসঙ্গত উল্লেখ্য, আজ বুধবারই বিহারে অনুষ্ঠিত হয়েছে প্রথম দফার ভোট গ্রহণ প্রক্রিয়া। করোনা আবহেই বিধানসভা নির্বাচন শুরু হয়েছে বিহারে। বিহারের মোট ২৪৩টি আসনের মধ্যে ৭৩ টি আসনে আজ ভোট গ্রহণ হবে। বলা বাহুল্য, করোনা পরিস্থিতিতে কর্মসংস্থান, বেকারত্ব, পরিযায়ী শ্রমিক সমস্যা ইত্যাদি বড় ভূমিকা গ্রহণ করতে চলেছে বিহারের ভোটে। তাই গোটা দেশ কার্যত তাকিয়ে রয়েছে বিহারের দিকে।

Tags

Related Articles

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *

Back to top button
Close
Close