মহানগর

সত্যজিৎ রায়ের হাত ধরে আসেন সিনে জগতে, আজ মৃত্যুলোকের পথে ‘জন অরণ্য’-এর সোমনাথ

মহানগর বার্তা ওয়েবডেস্কঃ প্রয়াত প্রদীপ মুখোপাধ্যায় (Pradip Mukherjee)। সোমবার সকাল ৮ঃ১৫ মিনিট নাগাদ না ফেরার দেশে চলে যান বর্ষীয়ান এই অভিনেতা। বাংলা তথা ভারতীয় ইতিহাসে মাইলস্টোন সৃষ্টি করা বেশ কিছু ছবির মুখ্য ভূমিকায় অভিনয় করেছেন প্রদীপ বাবু। যা সমালোচক ও দর্শকদের মুগ্ধ বিভোর করেছে আজীবন।

প্রদীর বাবুর দুই সন্তান। এক ছেলে ও এক মেয়ে দু’জনেই থাকেন দুবাইয়ে। প্রদীপ মুখোপাধ্যায় (Pradip Mukherjee) গত কয়েকদিন ধরে ভর্তি ছিলেন দমদম ক্যান্টনমেন্টের এক হাসপাতালে। রবিবার ভেল্টিলেশনে দিতে হয় তাঁকে। সোমবার সকালে প্রয়াত হন প্রদীপ বাবু।

প্রদীপ বাবুর স্ত্রী তপতি মুখোপাধ্যায় জানিয়েছেন, রক্তে বিষক্রিয়াই তাঁর মৃত্যুর কারণ। রক্তে বিষক্রিয়া বা সেপ্টিসেমিয়ার সঙ্গেই নিউমোনিয়াও ধরা পড়েছিলো তাঁর। এমনটাই জানিয়েছেন হাসপাতালের আধিকারিকরা। এছাড়াও ফুসফুসে সংক্রমণও দেখা দেয় তাঁর। প্রদীপ বাবুর মেয়ে পায়েল মুখোপাধ্যায় জানিয়েছেন, দমদমের কাছেই কোনো শ্মশানে শেষকৃত্য সম্পন্ন হবে তাঁর।

আরও পড়ুন: খিদিরপুরে ভয়াবহ দুর্ঘটনা, লরির চাপে মৃত্যু তৃণমূল কাউন্সিলরের ছেলের

নির্মল চক্রবর্তীর পরিচালনায় ছবি ‘দত্তা’র শ্যুটিং করছিলেন অভিনেতা। দু’দিন শ্যুটিং করার পরই অসুস্থ হয়ে পড়েন তিনি। প্রথমে ভর্তি করানো হয় নাগেরবাজারের এক বেসরকারি হাসপাতালে। তার পর দমদম ক্যান্টনমেন্টের মিউনিসিপ্যাল হাসপাতালের বেসরকারি বিভাগে ভর্তি করানো হয় তাঁকে। সেখানেই প্রয়াত হলেন অভিনেতা। কাজ শেষ করা হলো না প্রদীপ মুখোপাধ্যায় (Pradip Mukherjee) এর।

আরও পড়ুন:প্ৰথম ভারতীয় হিসাবে রেকর্ড গড়লেন ‘সোনার ছেলে’, ডায়মন্ড লিগ মিট খেতাব জিতলেন নীরজ

সত্যজিত রায়ের জনঅরণ্য ছবি দিয়েই সিনেমা জগতে পা রাখেন প্রদীপ বাবু। প্রথম জীবনে ওকালতি করতেন তিনি। আর অভিনয় করতেন শখের থিয়েটারে। নক্ষত্র থিয়েটার গ্রুপে তাঁর অভিনয় দেখে ভালো লেগে যায় সত্যজিত রায়ের। তৈরি হয় ভারতীয় সিনেমার মাইলস্টোন ছবি ‘জন অরণ্য’। আর এই ছবির মুখ্য ভূমিকায় অভিনয় করেন প্রদীপ মুখোপাধ্যায় (Pradip Mukherjee)।  তারপর একে একে ‘অশ্লীলতার দায়ে’, ‘সতী’,  ‘পুরুষোত্তম’, ‘হিরের আঙটি’, ‘উৎসব’ এর মতো ছবি উপহার দিয়েছেন তিনি।

সবার খবর সঠিক খবর পড়তে চোখ রাখুন মহানগর বার্তায়

Related Articles

Leave a Reply

Your email address will not be published.

Back to top button
নিজের লেখা নিজে লিখুন
Close
Close