বিনোদন

সিবিআইয়ের জেরার কাছে মুখ থুবড়ে পড়ল রিয়ার প্রতিবেশীর চাঞ্চল্যকর দাবি

মহানগরবার্তা ওয়েবডেস্ক: সুশান্ত সিং রাজপুতের মৃত্যুর আগের দিন রিয়া চক্রবর্তী তাঁর সঙ্গে দেখা করেছিলেন,এমনটাই দাবি করেছিলেন রিয়া চক্রবর্তীর এক প্রতিবেশী। কিন্তু সিবিআইয়ের জেরার মুখে সেই বক্তব্যের সমর্থনে কোনো প্রমাণ দিতে পারলেন না তিনি। সূত্রের খবর, ভবিষ্যতে তিনি যেন আর কখনো ভুয়ো খবর যাতে না ছড়ান সে বিষয়ে তাঁকে সতর্ক করেছে সিবিআই।

রিয়া চক্রবর্তী জেলে থাকাকালীন সময়ে তাঁর এক প্রতিবেশী টেলিভিশন চ্যানেলের সামনে দাবি করেছিলেন যে সুশান্ত সিং রাজপুতের মৃত্যুর আগের দিন রিয়া চক্রবর্তীর সঙ্গে দেখা করেছিলেন সুশান্ত। অভিনেতাকে নাকি গাড়িতে করে রিয়াকে বাড়ি পৌঁছে দিতে দেখেছিলেন তিনি, এমনটাই বক্তব্য ছিল ওই প্রতিবেশীর। কেন্দ্রীয় গোয়েন্দা সংস্থার সদস্যরা তদন্তের স্বার্থে রিয়া চক্রবর্তীর বাড়ি গিয়েছিলেন। সেসময় তাঁরা ওই প্রতিবেশীর বয়ানের জন্য তাঁকে তলব করেন।

জানা যাচ্ছে, সিবিআইয়ের সামনে ওই প্রতিবেশী মহিলা আর কোনো সুনির্দিষ্ট প্রমাণ দিতে পারেননি। এমনকি তিনি যে আদেও ঘটনার আগের দিন রিয়া চক্রবর্তী এবং সুশান্ত সিং রাজপুতকে দেখেননি তাও স্বীকার করেছেন তিনি। মহিলার এহেন আচরণে বিরক্ত সিবিআইয়ের কর্মকর্তাগণ। ভবিষ্যতে আর কখনো যেন এমন ভুয়ো খবর ছড়ানো না হয়, তাঁরা ওই মহিলাকে সে বিষয়ে কড়া বার্তা দিয়েছেন বলে জানা গেছে।

এদিকে, রিয়া চক্রবর্তীর আইনজীবী সতীশ মানশিন্ডে এদিন বলেছেন, যে বা যাঁরা নিছক আনন্দের বশে তাঁর মক্কেলের বিরুদ্ধে ভুয়ো অভিযোগ এনেছেন, তাঁদের প্রত্যেকের বিরুদ্ধে ব্যবস্থা নেবেন তিনি। “যাঁরা যাঁরা এই মামলা সম্পর্কে টিভি বা সোশ্যাল মিডিয়ায় ভুয়ো অভিযোগ এনেছিলেন, আমরা সিবিআইয়ের কাছে তাঁদের নামের একটি তালিকা পেশ করবেন। তাঁদের বিরুদ্ধে আইনি ব্যবস্থা গ্রহণের আর্জিও জানাব আমরা সিবিআইয়ের কাছে।” বলেন তিনি।

প্রসঙ্গত উল্লেখ্য, গত ১৪ই জুন বলিউডের জনপ্রিয় অভিনেতা সুশান্ত সিং রাজপুতের ঝুলন্ত দেহ উদ্ধার করা হয় তাঁর বান্দ্রার ফ্ল্যাট থেকে। এই আকস্মিক মৃত্যুর পরেই তোলপাড় হয় সোশ্যাল মিডিয়া। ঘটনার তদন্তের ভার নেয় সিবিআই। বলিউডে মাদক কান্ডের সঙ্গে যুক্ত থাকার অভিযোগে গ্রেফতার করা হয় অভিনেতার বান্ধবী রিয়া চক্রবর্তীকে। প্রায় এক মাস কারাবাসের পর অবশেষে জামিন পেয়েছেন তিনি।

Tags

Related Articles

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *

Back to top button
Close
Close