রাজ্যরাজনীতি

‘TMC-র প্ল্যানে গাড়িতে আগুন,’ বিস্ফোরক শমীক, ‘পুড়িয়েছে BJP নেতার ছেলে,’ পাল্টা দাবি সুদীপের

নিজস্ব প্রতিবেদন: মঙ্গলবারের নবান্ন অভিযান এবং বিজেপি কর্মীদের বিরুদ্ধে তাণ্ডবের অভিযোগের মধ্যে সামনে আসে পুলিশের গাড়িতে আগুন লাগানোর ছবি। কলকাতা পুলিশের আধিকারিক আহত হওয়ার সঙ্গে সঙ্গেই পুলিশের গাড়িতে আগুন নিয়েও উত্তপ্ত হয় রাজ্য রাজনীতি। এবার সেই প্রসঙ্গেই বিস্ফোরক মন্তব্য করলেন রাজ্য বিজেপির মুখপাত্র শমীক ভট্টাচার্য(Samik Bhattacharya)তিনি শুক্রবার আমাদের জানান, “আগুন লাগিয়েছে তৃণমূল! সম্পূর্ণ অন্তর্ঘাত। এই ঘটনায় সঠিক তদন্ত হওয়া উচিৎ। আসলে কে করেছে এই কাজ, বেরিয়ে আসুক।” শমীকের অভিযোগ, “পুলিশ আর তৃণমূল এক। ওরাই করছে এসব। ওরা কিছু লোককে যৌথভাবে গ্রেফতার করছে। দমদম থেকে গভীররাতে, বাড়ি ঘিরে রেখে একজন প্রবীণ মানুষকে গ্রেফতার করেছে পুলিশ। এই আগুনের ঘটনায় অভিযুক্ত হিসেবে। যাঁর আদি বাড়ি এগরায়। যেন উগ্রপন্থীকে গ্রেফতার করা হচ্ছে!”

শমীক ভট্টাচার্যের(Samik Bhattacharya)এই মন্তব্যের পরই প্রশ্ন উঠেছে। তাহলে কি মঙ্গলবারের ঘটনা, রবীন্দ্রসরণি-তে গাড়িতে আগুন লাগায় ছিল চক্রান্ত? শমীকের অভিযোগ উড়িয়ে তৃণমূল সাংসদ সৌগত রায়ের দাবি, “গাড়িতে আগুন লাগানোর সংস্কৃতি বিজেপি ফিরিয়ে এনেছে ১৯৫২-৫৩ সালের বামেদের মতো করে। আসলে বিজেপির লোক কম, তাই এসব করে!”

বিজেপি নেতা শমীকের এই মন্তব্যের পরেই পাল্টা সরব হয়েছেন তৃণমূল কংগ্রেসের মুখপাত্র সুদীপ রাহা। সুদীপের দাবি, ”ওই গাড়িতে আগুন লাগিয়েছে মুর্শিদাবাদের বেলডাঙার ১৩ নম্বর ওয়ার্ডের বিজেপি কাউন্সিলরের ছেলে। অভিযুক্ত ওই যুবকের নাম রণি ঘোষ। ভিডিও ফুটেজ আছে। তাঁকে দেখা গিয়েছে একাজ করতে। এর পরেও মিথ্যা বলার অভ্যাস থেকেই এসব মিথ্যা বলছেন শমীক ভট্টাচার্য। আসলে বিজেপি কর্মীদের উত্যক্ত করেছে বিজেপি নেতারা। ওঁদের দল কর্মীদের সঙ্গে নেই, এটাই প্রমাণিত হয়েছে বারবার।” এই প্রসঙ্গে মুখ খুলেছে বামেরাও। সিপিএম নেতা সুজন চক্রবর্তীর দাবি, “রাস্তায় দাঁড়িয়ে থাকা গাড়ি। চালক নেই। পুলিশ নেই। এসব ঘটে গেল পুলিশ এল না কেন! তাহলে কি এইরকম ঘটুক সেটাই চাইছিল প্রশাসন?”

আরও পড়ুন: নবান্ন অভিযানের পর বামেদের পুরসভা অভিযান, ভাঙল ব্যারিকেড, উত্তপ্ত রাজপথ

প্রসঙ্গত, মঙ্গলবার বিজেপির নবান্ন অভিযানে পুলিশের গাড়িতে আগুন লাগানোর ঘটনার পরেই কলকাতার পার্শ্ববর্তী এলাকা থেকে একাধিককে গ্রেফতার করেছে কলকাতা পুলিশ। অভিযুক্ত হিসেবে নাম জড়িয়েছে বিজেপি নেতা, কর্মীদের।

সবার খবর সঠিক খবর পড়তে চোখ রাখুন মহানগর বার্তায়

Tags

Related Articles

Leave a Reply

Your email address will not be published.

Back to top button
নিজের লেখা নিজে লিখুন
Close
Close