খবরদুনিয়া

বাংলাদেশে হিন্দুদের উপর অত্যাচার হলে, তড়িঘড়ি ব্যবস্থা নেওয়া হয়: শেখ হাসিনা

মহানগর বার্তা ডেস্ক : শুধুমাত্র বাংলাদেশ নয়, ভারত-সহ একাধিক দেশে সংখ্যালঘুদের উপর নির্যাতন হয়। ভারত সফরের আগে এন আই এ কে দেওয়া সাক্ষাৎকারে এমনই মন্তব্য করলেন বাংলাদেশের প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা। একইসঙ্গে তিনি জানিয়ে রাখলেন, সে দেশে সংখ্যালঘুদের দমন-পীড়নের ঘটনা ঘটলে সঙ্গে সঙ্গে ব্যবস্থা নেওয়া হয়। সাম্প্রদায়িক সম্প্রীতি নষ্টের চেষ্টা করলেই কঠোর পদক্ষেপ করে হাসিনা সরকার।

সোমবার ভারত সফরে আসছেন শেখ হাসিনা। তার আগে সংবাদ সংস্থাকে দেওয়া সাক্ষাৎকারে বাংলাদেশের সংখ্যালঘু হিন্দুদের উপর হওয়া অত্যাচার নিয়ে মুখ খুলেছেন তিনি। স্পষ্ট জানিয়ে দিয়েছেন, অভিযুক্তদের বিরুদ্ধে দ্রুত কঠোর ব্যবস্থা নেওয়া হচ্ছে। সংখ্যালঘু হিন্দুরা বাংলাদেশেরই নাগরিক। সে দেশে প্রধানমন্ত্রীর অধিকার যতটা ততটাই অধিকার রয়েছে হিন্দুদেরও।

গত বছর দুর্গাপুজোয় বাংলাদেশের একাধিক মণ্ডপে তাণ্ডব চালায় দুর্বৃত্তরা। নষ্ট করা হয় প্রতিমা। এমনকী, কিছুদিন আগে হিন্দু নাগরিকদের উপর অত্যাচারের ঘটনা সামনে এসেছিল। পুড়িয়ে দেওয়া হয়েছিল দোকান-বাড়ি। এ প্রসঙ্গে সাক্ষাৎকারে হাসিনা বলেন,”আমরা যবে থেকে ক্ষমতায় রয়েছি তখন থেকে আমরা সংখ্যালঘুদের অধিকার সংরক্ষণে জোর দিয়েছি। আমি সবসময় তাঁদের বলে, ওঁরা আমাদের দেশেরই নাগরিক। এ দেশ তাঁদেরও। কিন্তু কখনও কখনও কিছু কিছু অপ্রীতিকর ঘটনা ঘটে। তবে সেক্ষেত্রেও তৎক্ষনাৎ ব্যবস্থা গ্রহণ করা হয়। তবে এধরনের ঘটনা মোটেও কাম্য নয়।”

সংখ্যালঘুদের উপর অত্যাচার প্রসঙ্গে বলতে গিয়ে সোশ্যাল মিডিয়ার সমালোচনা করেন বাংলাদেশের প্রধানমন্ত্রী। তাঁর কথায়, “চরমপন্থা মাথাচাড়া দেওয়ার জন্য বহুলাংশে দায়ী সোশ্যাল মিডিয়া। যা দিন দিন চরম আকার নিচ্ছে।” এরপরই তিনি বলেন, “শুধু বাংলাদেশ তো নয়, ভারতেও সংখ্যালঘুদের অত্যাচারিত হতে হয়। তবে দুই দেশই যথেষ্ট উদার। আর আপনারা তো জানেনই বাংলাদেশ ধর্মনিরপেক্ষ। সেখানে ভিন্ন ভিন্ন ধর্মালম্বীর বাস। প্রত্যেকে শান্তিতে একসঙ্গে বাস করে। দু-একটা এধরনের ঘটনা ঘটলে আমরা তড়িঘড়ি ব্যবস্থা নিই।”

Related Articles

Leave a Reply

Your email address will not be published.

Back to top button
নিজের লেখা নিজে লিখুন
Close
Close