রাজনীতি

বিধানসভাতেও বিরোধীদের কন্ঠরোধ করা হচ্ছে, বিস্ফোরক শুভেন্দু অধিকারী

মহানগর বার্তা ওয়েবডেস্ক: ২০২১ সালের প্রথম দিন থেকে বিধানসভা অধিবেশনকে ঘিরে তরজমা চলছে। অধিবেশনের প্রথম দিনেও বিরোধী দল বিজেপির বিক্ষোভ এবং রাজ্যপালের ৪ মিনিট বক্তব্য রেখে বেড়িয়ে যাওয়া স্পষ্ট ইঙ্গিত অসন্তোষের। আজ ৬ই জুলাই অধিবেশনের দ্বিতীয় দিন। আজও বিধানসভা সাক্ষী থাকল তুমুল শোরগোলের।

রাজ্যের ভোট পরবর্তী হিংসা নিয়ে রাজ্যের শাসকদল ও বিরোধীদলের মধ্যে যে মতপার্থক্য তা ছাপ ফেলল বিধানসভা অধিবেশনের দ্বিতীয় দিনেও। এদিন মুখ্যমন্ত্রী মমতা বন্দ্যোপাধ্যায়ের উপস্থিতিতে তুমুল বিক্ষোভ দেখিয়ে অধিবেশন থেকে ওয়াক আউট করলেন বিজেপি বিধায়করা। সাংবাদিক সম্মেলনে বিরোধী দলনেতা শুভেন্দু  বললেন, ‘এমন দলদাস স্পিকার দেখিনি। বিরোধীদের কণ্ঠরোধ করতে চাইছেন। এটা গণতন্ত্রের পক্ষে বিপজ্জনক’।

এখানেই থেমে থাকেননি এই বিরোধী দলনেতা, তিনি আরো বলেন, ‘একজন মুখ্যমন্ত্রী বিধানসভা ভোটে প্রতিদ্বন্দ্বিতা করে হেরেছেন। তাঁর দল জিতেছে। যিনি তাঁকে হারিয়েছেন, তিনি বিরোধী দলনেতা হয়েছে। একথা বিধানসভায় বলা যাবে না! মমতার চোখে ইশারায় রে রে করে উঠলেন তৃণমূল বিধায়করা’। শুভেন্দুর কথায়,  ‘আইনমন্ত্রী কানে কানে গিয়ে বলল। তারপর স্পিকার বলছে, বিষয়টি সাব জুডিস। কিন্তু কোনও অন্তর্বর্তীকালীন রায় নেই। প্রশ্ন তুললেন, ‘তাহলে আমি এখানে  থাকব কেন? আমাকে বের করে দিন’। অর্থাৎ তিনি এদিন স্পিকারের নিরপেক্ষতা নিয়েও সন্দেহ প্রকাশ করলেন।

দ্বিতীয় অধিবেশনেও এই হট্টগোলের পরিস্থিতিতে কেন এল! এপ্রসঙ্গে জানতে চাওয়া হলে শুভেন্দু অধিকারী বললেন,  ‘বিধানসভায় তৃণমূল বিধায়কদের হইচই, আক্রমণ প্রতিহত করার ক্ষমতা বিজেপি বিধায়কের আছে’। তাহলে ওয়াকআউট কেন? শুভেন্দুর সাফ কথা, ‘স্পিকার বিরোধীদের সংরক্ষণ দেবেন, আইন মেনে চলবেন। তাঁর শাসকদলের প্রতি, যে দলের প্রতীকে জিতেছেন, সেই দলের প্রতি দূর্বলতা প্রকাশ পেয়েছে। সেকারণেই আমরা বিধানসভা বয়কট করলাম। আমরা সাধারণ মানুষকে জানাতে চাই, বিধানসভায়ও বিরোধীদের কণ্ঠরোধের চেষ্টা হচ্ছে’।

Tags

Related Articles

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *

Back to top button
Close
Close