দেশ

লকডাউনের পর নেই কাজ, গরীব ছাত্রের স্কুলের বেতন দিলেন সোনু সুদ

মহানগরবার্তা ওয়েবডেস্ক: করোনা কালে দরিদ্র অসহায় মানুষের পাশে দাঁড়িয়ে গোটা দেশের আশীর্বাদ পেয়েছেন সোনু সুদ। বলিউড অভিনেতার চেয়েও একজন প্রকৃত মানবদরদী হিসেবে তাঁর জনপ্রিয়তা তুঙ্গে উঠেছে। পরোপকারের নজিরে ইতিমধ্যে আন্তর্জাতিক স্বীকৃতিও পেয়ে গিয়েছেন তিনি। কিন্তু তাঁর পরহিতব্রতে বিরাম আসে নি। বরং দিন দিন তাঁর সাহায্যের হাত যেন বড়ো হয়ে চলেছে আরও।

অসুস্থ ব্যক্তির চিকিৎসার ব্যবস্থা করে দিয়ে একাধিকবার শিরোনামে এসেছেন সোনু সুদ। এবার এক দরিদ্র স্কুল ছাত্রের স্কুলের বেতন দিয়ে তাঁর পড়াশোনা চালিয়ে যাওয়া নিশ্চিত করলেন তিনি। করোনা মহামারীতে বিপর্যস্ত অর্থনৈতিক পরিস্থিতিতে ওই ছাত্রের পড়াশোনা প্রায় বন্ধ হয়ে যেতে বসেছিল। সোনু সুদের সাহায্যের হাত পৌঁছোলো তাঁর কাছেও।

জানা গেছে, ওই ছাত্রের নাম চন্দন রায়। সে ঝাড়খণ্ডের দেওঘরের বাসিন্দা। করোনা পরবর্তী লকডাউনে তাঁর পরিবারের আর্থিক অবস্থা শোচনীয় হয়ে পড়ে। পরিবারের উপার্জনকারী ব্যক্তি বেকার হয়ে পড়ে। এমতাবস্থায় পড়াশোনা চালিয়ে যাওয়ার জন্য স্কুলের বেতন দেওয়ার ক্ষমতা ছিল না তার।

সোনু সুদের মানবসেবার কথা শুনে বহুদিন ধরেই তাঁর কাছে সাহায্য চাইছিল ওই ছাত্র। লেখাপড়া চালিয়ে যেতে চায় সে, এমনটাই জানিয়েছিল দেওঘরের চন্দন রায়। এদিন সোনু সুদ তার ব্যাঙ্ক অ্যাকাউন্টে সরাসরি স্কুলের বেতনের টাকা দিয়ে দেন। আবেগে উচ্ছ্বসিত ওই ছাত্র অভিনেতার প্রতি নিজের কৃতজ্ঞতা জানিয়ে সোশ্যাল মিডিয়ায় পোস্ট করে। ট্যুইটারে সে ব্যাঙ্ক লেনদেনের বিস্তারিত জানিয়ে বলে, “আমার অন্তরের গভীর থেকে আমি আপনার প্রতি কৃতজ্ঞ। আপনি আমার স্কুলের বেতন দিয়েছেন, এই মহামারী পরিস্থিতিতে এটা একটা বিশাল সাপোর্ট। আপনাকে এবং আপনার সমস্ত সহকারীকে আমি ধন্যবাদ জানাচ্ছি।”

ওই ছাত্রের ট্যুইটের উত্তর দিয়েছেন অভিনেতা। নিজের ট্যুইটার হ্যান্ডেল থেকে তিনি লিখেছেন, “যেদিন তোমার ক্ষমতা হবে, কারোর জন্য তুমিও এই একই কাজ কোরো।” প্রসঙ্গত উল্লেখ্য, করোনা ভাইরাসের প্রাদুর্ভাবে ভারত জুড়ে যখন লকডাউন শুরু হয়েছিল, তখন পরিযায়ী শ্রমিকদের ঘরে ফেরাতে ব্যক্তিগত উদ্যোগ গ্রহণ করেছিলেন সোনু সুদ। সেই থেকে যে মানবসেবার সূচনা তিনি করেছেন আজও তাতে ছেদ পড়েনি।

Tags

Related Articles

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *

Back to top button
Close
Close