আন্তর্জাতিকদেশ

মানুষের পাশে দাঁড়িয়েছেন ত্রাতা হয়ে, এবার রাষ্ট্রসংঘের বিরল স্বীকৃতি পেলেন সোনু সুদ

মহানগর বার্তা ওয়েবডেস্ক: রাষ্ট্রসংঘের পুরস্কারে সম্মানিত হলেন বলিউড অভিনেতা সোনু সুদ। করোনা ভাইরাস সংক্রমণের ফলে উদ্ভুত পরিস্থিতিতে ভারতের অসহায় মানুষদের পাশে দাঁড়ানোর জন্য রাষ্ট্র সংঘের তরফ থেকে তাঁকে দেওয়া হল ‘এসডিজি স্পেশ্যাল হিউম্যানিটেরিয়ান অ্যাকশন অ্যাওয়ার্ড’। এর ফলে তাঁর নাম যুক্ত হল অ্যাঞ্জেলিনা জোলি, লিওনার্দো ডিক্যাপ্রিও, এমা ওয়াটসন,ডেভিড বেকহ্যাম ,প্রিয়াঙ্কা চোপড়া প্রমুখের মতো জনপ্রিয় আন্তর্জাতিক খ্যাতিসম্পন্ন ব্যক্তিত্বদের সঙ্গে।

 

এই প্রেক্ষাপটেই সোনু সুদকে এবার সম্মানিত করল রাষ্ট্র সংঘ। তাঁকে দেওয়া হল সংযুক্ত রাষ্ট্র বিকাশ কার্যক্রমের (United Nations Development Programme) তরফ থেকে এসডিজি স্পেশ্যাল হিউম্যানিটেরিয়ান অ্যাকশন অ্যাওয়ার্ড। মঙ্গলবার রাষ্ট্র সংঘ আয়োজিত একটি ভার্চুয়াল অনুষ্ঠানে এই পুরস্কার প্রদান করা হয়। পুরস্কার প্রাপ্তির পর সোনু বলেন, “এটা একটা বিরল সম্মান। রাষ্ট্র সংঘের স্বীকৃতি সবসময়েই খুব স্পেশাল। নিজের দেশবাসীর জন্য সাধ্য অনুযায়ী আমি যা করেছি, কোনও প্রত্যাশা রাখিনি তাতে। কিন্তু এই সম্মান পেয়ে আমি খুশি। ”

 

বলিউডের পর্দায় একাধিক বার খলনায়কের ভূমিকায় অবতীর্ণ হলেও বাস্তবে আর তিনি নিছক অভিনেতা নন, পরিযায়ী শ্রমিক অন্যান্য অসহায় মানুষদের কাছে কার্যত দেবদূত হয়ে উঠেছেন সোনু সুদ। বিশ্বজুড়ে করোনা অতিমারীর ফলে উদ্ভুত পরিস্থিতি সামাল দিতে গত মার্চ মাস থেকে ভারতে যে লকডাউন চালু হয়, এর ফলে চরম দুরবস্থা ও আর্থিক সংকটের সম্মুখীন হন এই দেশের অসংখ্য মানুষ। বিভিন্ন রাজ্যে প্রবাসী শ্রমিকেরা কাজ হারিয়ে নিজ নিজ ঘরে ফিরতে চাইলেও বাধ সাধে লকডাউন। সরকারের তরফ থেকে এই অসহায় মানুষগুলোর জন্য যখন কোনো ব্যবস্থা করা হয় না, তখনই আসরে নামেন অভিনেতা।

 

করোনা আবহে পরিযায়ী শ্রমিককে ব্যক্তিগত খরচে তিনি ঘরে ফেরানোর ব্যবস্থা করেন। অবশ্য সোনু সুদের সাহায্যের হাত শুধু মাত্র পরিযায়ী শ্রমিকদের কাছেই থেমে থাকে নি। ক্রমে তা এগিয়ে যায় ভারতের আনাচে কানাচে ছড়িয়ে থাকা অসহায় বিপদগ্রস্ত মানুষগুলোর দিকে। গত কয়েক মাস ধরে গরিব অসহায় মানুষদের স্বার্থে অক্লান্ত পরিশ্রম করে এভাবেই অসংখ্য হৃদয় জিতে নিয়েছেন হিন্দি চলচ্চিত্র জগতের এই অভিনেতা। আর নিছক অভিনেতা নয়, তাঁর পরিচয় এখন ভারতের যে কোনো প্রান্তের যে কোনো অসহায় মানুষের ত্রাতা হিসেবে।

Tags

Related Articles

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *

Back to top button
Close
Close