দেশবিনোদন

মানবসেবার সঙ্গে পশুপ্রেমও!বছরের সেরা নিরামিষাশীর তকমা পেলেন সোনু সুদ, শ্রদ্ধা কাপুর

মহানগরবার্তা ওয়েবডেস্ক: জাতি ধর্ম ভাষা পোশাক ইত্যাদি বাকি সব কিছুর মতো খাবারের জগতেও মানুষের অভ্যাসের তারতম্যটা বরাবরই ছিল চোখে পড়ার মতো। খাদ্যাভাসের ভিত্তিতে মানুষ মূলত দুই ভাগে বিভক্ত। একদল খাবারের পাতে মাছ, মাংস কিংবা ডিমেই খুঁজে পান স্বর্গ।আবার আমিষ খাদ্যে চির অনীহা নিয়ে বেঁচে থাকেন অন্য আরেক দল মানুষ।আমিষাশী এবং নিরামিষাশীদের এই দ্বন্দ্ব চিরকালীন। আর এই দ্বন্দ্বে আমিষাশী কিংবা নিরামিষাশী, কেউই নিজের যুক্তি থেকে সরতে চান না এক চুলও।

সাধারণ মানুষ হোক বা বলিউড তারকা, অনেকেই খাবার পাতে পছন্দ করেন নিরামিষ জিনিস। সেই অনুযায়ী এবার বছরের সেরা নিরামিষভোজীর তকমা পেলেন বলিউডের দুই জনপ্রিয় তারকা। সোনু সুদ এবং শ্রদ্ধা কাপুর দুজনেই নিজের নিজের ক্ষেত্রে প্রতিষ্ঠিত। দুজনেই পশু পাখিদের প্রতি নিজেদের উদ্বেগ প্রকাশ করেছেন বারবার। নিরামিষ খাদ্যের প্রচারও চালিয়ে গেছেন। এবছরের উষ্ণতম নিরামিষভোজী (hottest vegetarians) হিসেবে ঘোষণা করা হয়েছে তাঁদের দুজনের নাম। পশু সেবামূলক সংস্থা পেটার (PETA) তরফ থেকে তাঁদের এই স্বীকৃতি দেওয়া হয়েছে বলে জানা গেছে।

বস্তুত, করোনা কালে দরিদ্র সাধারণ মানুষের পাশে দাঁড়িয়ে ইতিমধ্যেই প্রভূত প্রশংসা কুড়িয়েছেন বলিউড অভিনেতা সোনু সুদ। অভিনেতার চেয়ে প্রকৃত মানবদরদী হিসেবেই এখন তাঁর খ্যাতি ছড়িয়েছে দেশ বিদেশে। কিন্তু মানুষের সাথে সাথে তিনি যে পশুপ্রেমীও তারও প্রমাণ মিলেছে বিস্তর। পেটার তরফ থেকে একটি নিরামিষাশীদের প্রচারেও অংশ নিয়েছিলেন তিনি।

এছাড়া, পশুদের উপর মানুষের নির্মম আচরণের বিরোধিতা করে দীর্ঘদিন ধরেই লড়াই চালিয়ে আসছেন শ্রদ্ধা কাপুরও। সুযোগ পেলেই তিনি পশু হত্যার বিরোধিতায় সরব হন। এদিন পেটার তরফ থেকে জানানো হয়, “সোনু সুদ এবং শ্রদ্ধা কাপুর প্রতিদিন খেতে বসার সময় দুনিয়া বদলে দিতে সাহায্য করেন। তাঁরা নিজেদের ভক্তদেরকেও মাংস ছাড়া খাবার খেতে উৎসাহ দিয়ে থাকেন।”

উল্লেখ্য, পেটার তরফ থেকে এই সেরা নিরামিষভোজীর তকমা এর আগে পেয়েছেন নরেন্দ্র মোদী, অমিতাভ বচ্চন, মানুসি চিল্লার, সুনীল ছেত্রী, অনুস্কা শর্মা, কার্তিক আরিয়ান, কঙ্গনা রানাওয়াত, শাহিদ কাপুর এবং রেখার মতো তারকারা।

Tags

Related Articles

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *

Back to top button
Close
Close