রাজ্যরাজনীতি

মমতা ব্যানার্জীর পায়ের তলায় নেতাজির ছবি, টুইট করে খোঁচা সৌমিত্র খাঁয়ের

মহানগরবার্তা ওয়েবডেস্ক: আবহাওয়া দপ্তরের খবর বলছে রাজ্যের তাপমাত্রা ১২ থেকে ১৫-র মধ্যে নেমে গেছে।কিন্তু বাংলার রাজনীতির দিকে চোখ রাখলে তা বোঝার উপায় নেই। একুশের বিধানসভা নির্বাচন যতই এগিয়ে আসছে রাজনৈতিক বাদানুবাদে ততই উত্তপ্ত হচ্ছে বাংলার পরিস্থিতি। বর্তমানে কেন্দ্রীয় স্বরাষ্ট্রমন্ত্রী অমিত শাহের রাজ্য সফরকে ঘিরে ফের সরগরম হয়ে উঠেছে পরিস্থিতি।

বীরভূমের শান্তিনিকেতনে অমিত শাহের হোর্ডিং নিয়ে যে বিতর্কের সূচনা হয়েছিল, তার জেরে ইতিমধ্যেই বহু বার সমালোচনায় সরব হয়েছে তৃণমূল। এদিন শাসকদলের সেই সমালোচনার পাল্টা জবাব দিলেন বিজেপি নেতা সৌমিত্র খাঁ। সোশ্যাল মিডিয়ায় এদিন তিনি তৃণমূল কংগ্রেস নেত্রী মমতা বন্দ্যোপাধ্যায়ের একটি পোস্টারের ছবি শেয়ার করে পাল্টা প্রশ্ন ছুঁড়ে দিয়েছেন শাসক দলের দিকেই।

রবিবার বিকেলে বিজেপি যুব মোর্চার নেতা সৌমিত্র খাঁ তাঁর ট্যুইটার হ্যান্ডেল থেকে মমতা বন্দ্যোপাধ্যায়ের একটি বড় হোর্ডিংয়ের ছবি শেয়ার করেন। সেই ছবিতে দেখা গেছে মমতা বন্দ্যোপাধ্যায়ের বিশাল একটি হোর্ডিংয়ের নীচে নেতাজি সুভাষচন্দ্র বসুর একটি তুলনামূলক ছোট্ট ছবি। তাতে মালা দেওয়া রয়েছে, যা দেখে বোঝা যায় কোনো বিশেষ একটি দিনে নেতাজি সুভাষচন্দ্র বসুকে স্মরণ করা হয়েছে। এবং তা যে করা হয়েছে তৃণমূলের তরফ থেকেই তাও বুঝে নিতে অসুবিধা হয় না।

এই হোর্ডিংকে হাতিয়ার করেই অমিত শাহের হোর্ডিং বিতর্কের পাল্টা দিতে মাঠে নেমেছেন সৌমিত্র খাঁ। তিনি ট্যুইটারের ওই ছবির সঙ্গে লিখেছেন, “লজ্জা থাকলে উত্তর দেবেন।” এই ট্যুইটের সঙ্গে তিনি ট্যাগ করেছেন কলকাতার মেয়র তথা তৃণমূল নেতা ফিরহাদ হাকিম এবং তৃণমূল কংগ্রেসের অফিসিয়াল ট্যুইটার হ্যান্ডেলকে। অর্থাৎ জবাবটা চাওয়া হয়েছে তাঁদের কাছ থেকেই।

প্রসঙ্গত উল্লেখ্য, অমিত শাহের শান্তিনিকেতন সফরের আগেই কেন্দ্রীয় স্বরাষ্ট্রমন্ত্রীকে সম্মান জানাতে গোটা বোলপুরকে তাঁর ব্যানার, পোস্টারে প্রায় মুড়ে ফেলে বিজেপি কর্মীরা। সেখানকার ফ্লেক্সে দেখা গিয়েছে, অমিত শাহের ছবির নীচে রবীন্দ্রনাথ ঠাকুরের ছবি, এবং তার নীচে স্থানীয় বিজেপি সাংসদ অনুপম হাজরার ছবি।শান্তিনিকেতনে অমিত শাহের নীচে রবীন্দ্রনাথের ছবি দেখে কার্যত ক্ষোভে ফেটে পড়েন আপামর রবীন্দ্র অনুগামীরা।

Tags

Related Articles

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *

Back to top button
Close
Close