দেশবিনোদন

বড়ো ঘোষণা: আত্মহত্যা নাকি খুন করা হয়েছে সুশান্তকে? সত্যিটা জানাতে চলেছে AIIMS

মহানগর বার্তা ওয়েবডেস্ক: অভিনেতা সুশান্ত সিং রাজপুতের মৃত্যুর পর প্রথম আইনের পথে এগোন অভিনেতার বাবা কেকে সিং। বিহার পুলিশের কাছে রিয়া চক্রবর্তী ও তার পরিবারের বিরুদ্ধে এফআইয়ার দায়ের করেন। তারপর থেকেই সুশান্ত মৃত্যু মামলা গতি পায়।

ইতিমধ্যেই বলিউড ক্যুইন কঙ্গনা দাবি করেন বলিউডে নেপোটিজমের শিকার সুশান্ত। তারপর সুশান্তের মৃত্যু তদন্ত নয়া মোড় নেয়। এই নিয়ে গত তিনমাস ধরেই চলতে থাকে জল্পনা। পাশাপাশি সুশান্তের অনুরাগীরাও মানতে নারাজ অভিনেতা সুইসাইড করতে পারেন বলে। দেশ বিদেশে জাস্টিস ফর সুশান্ত নামে বিলবোর্ড ছেয়ে যায়।

সুশান্ত তদন্তে নতুন দিশা দেখায় মাদকযোগ। এই মাদকযোগকে ঘিরে গ্ৰেফতার করা হয় রিয়া ও ভাই সৌভিককে। এর পাশাপাশি অভিনেতার কুক, ম্যানেজার গ্ৰেফতার হন সকলেই। প্রথমে সুশান্তের মৃত্যুতে ময়নাতদন্তের রিপোর্ট নিয়ে সন্দেহ প্রকাশ করে সিবিআই তবে এরপর সেই তদন্তভার নতুন করে দেওয়া হয় এইমসের হাতে।

AIIMS এর ফরেন্সিক বিভাগীয় প্রধান সুধীর গুপ্তার নেতৃত্বে ইতিমধ্যেই একটি টিম তৈরি করা হয়। এবং জানানো হয় শুক্রবারই হাতে আসবে সুশান্তের ভিসেরা রিপোর্ট। এমনকি সুশান্ত নিয়মিত মাদক নিতেন কিনা তাও স্পষ্ট হয়ে যাবে এই ভিসেরা রিপোর্টের মাধ্যমেই। সূত্র মারফত জানা যায় সিবিআই এর সঙ্গে কথা বলে রবিবারের মধ্যে যাবতীয় রিপোর্ট তৈরি করে ফেলবেন বিশেষজ্ঞরা। এবং স্পষ্ট করে দেওয়া হয় ২০ সেপ্টেম্বরের মধ্যে AIIMS এর তরফে সুশান্তের মৃত্যুর যাবতীয় সন্দেহের অবসান ঘটাবেন তাঁরা।

প্রসঙ্গত, মুম্বইয়ের কালিনা ল্যাবে প্রাথমিক পর্যায়ে সুশান্তের ভিসেরা রিপোর্ট তৈরি হয় কিন্তু আবারও নতুন ভাবে তৈরি করা হয়েছে এই রিপোর্ট। কারণ গত ময়নাতদন্তের রিপোর্ট নিয়ে বেশ কিছু প্রশ্ন তুলেছিলেন এইমসের বিশেষজ্ঞরা। তাদের মতে সেই রিপোর্টে উল্লেখ নেই মৃত্যুর সময়, সুশান্তের গলার দাগ এসব কিছুরই কোনও উল্লেখ নেই। গলায় ফাঁস দিয়ে ঝুলে থাকার কারণেই সুশান্তের মৃত্যু কিনা তাও স্পষ্ট হয়নি রিপোর্টে।

Tags

Related Articles

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *

Back to top button
Close
Close