রাজ্যরাজনীতি

একুশের আগে বাম-কংগ্রেস জোট ভাঙতে চাইছে বিজেপি তৃণমূল, ফের বিস্ফোরক অধীর

মহানগরবার্তা ওয়েবডেস্ক: আসন্ন বিধানসভা নির্বাচনের আগে রাজ্য জুড়ে শুরু হয়ে গেছে ভোটের প্রস্তুতি। বিহারের নির্বাচনের পালা মিটতেই বাংলায় বেজে গেছে ভোটের দামামা। দিন যত ঘনাচ্ছে, রাজনৈতিক দল গুলির মধ্যে বাক যুদ্ধ যেন ততই বেড়ে চলেছে। আগামী বছরের বিধানসভা নির্বাচন নিয়ে এবার মুখ খুললেন কংগ্রেস নেতা অধীর চৌধুরী।

সোমবার রাজ্যের বাম দলগুলির সঙ্গে বৈঠকে যোগ দিয়েছিলেন কংগ্রেসের রাজ্য সভাপতি অধীর রঞ্জন চৌধুরী। একুশের নির্বাচনের আগে বামফ্রন্টের সঙ্গে জোট বাঁধার পর আজকের বৈঠক ছিল গুরুত্বপূর্ণ। বৈঠক শেষে সংবাদমাধ্যমের সামনে এসে অধীর চৌধুরী গলায় শোনা গেল প্রত্যয়ের সুর। তাঁর বক্তব্য, “বাম-কংগ্রেস জোটের সম্ভাবনা বাড়ছে বলেই তৃণমূল আর বিজেপি জোটের ঘর ভাঙতে টাস্ক দিচ্ছে।” বস্তুত, মতাদর্শগত পার্থক্যের অজুহাতে তৃণমূল এবং বিজেপির তরফ থেকে বামফ্রন্ট ও কংগ্রেসের প্রাক্তন বা বর্তমান বিধায়কদের দলে টানবার চেষ্টা করা হচ্ছে বলে যে কানাঘুষো শোনা যাচ্ছে, তার পরিপ্রেক্ষিতেই এহেন মন্তব্য করেন অধীর চৌধুরী।

এদিন নির্বাচনী জোট নিয়ে সাংবাদিকদের সঙ্গে কথা বলেছেন বামফ্রন্ট চেয়ারম্যান বিমান বসুও। জোটে এখনই কোন দল কটা আসনে লড়বে তা নিশ্চিত করা হয় নি বলে জানিয়েছেন তিনি। “এখন পাখির চোখ ২৬ নভেম্বরের ধর্মঘট সফল করা। তার জন্য যৌথ ভাবে প্রস্তুতি নেওয়া হচ্ছে। ধর্মঘট মিটলে ফের বৈঠক হবে”, বলেন বামফ্রন্ট চেয়ারম্যান বিমান বসু। এখানেই শেষ নয়, বিমান বাবু আরো বলেন, ” কেউ কেউ ভাবছে শুধু বিজেপিই বিপদ। কিন্তু বিজেপিকে রাজ্যে হাত ধরে ডেকে এনেছে তৃণমূল। বাম-কংগ্রেসের লড়াই এই দুই শক্তির বিরুদ্ধেই।

জোট নিয়ে মন্তব্য করে এদিন কংগ্রেস সভাপতি অধীর চৌধুরী আরো বলেন, “আমি আর বিমান দা বা মান্নান দা সূর্য বাবু কি আলোচনা করছি তার ওপর জোট দাঁড়িয়ে নেই। নীচু তলায় বাম-কংগ্রেস কর্মীরা যৌথ আন্দোলন শুরু করে দিয়েছে।”

উল্লেখ্য, বিধানসভা নির্বাচনে বাম-কংগ্রেস জোট বাঁধার পরই সম্প্রতি বাম দল ছেড়ে বিজেপিতে যোগ দিয়েছেন নস্কর। এ নিয়ে খানিক অস্বস্তিতে পড়েছে লাল শিবির। তবে বিহার নির্বাচনে তাঁদের সাফল্য বাংলাতেও জোটের আশা বাড়িয়েছে বলে মনে করছে বিশেষজ্ঞ মহল।

Tags

Related Articles

Leave a Reply

Your email address will not be published.

Back to top button
নিজের লেখা নিজে লিখুন
Close
Close