রাজ্য

‘জুন-মিমি-নুসরতরা দলকে লুটেপুটে খাচ্ছে’, বিস্ফোরক মন্তব্য রাজ্যের মন্ত্রীর

মহানগর বার্তা ওয়েবডেস্ক: অনুব্রত-পার্থকে নিয়ে এমনিতেই বিড়ম্বনায় রয়েছে দল(TMC)। এবার তাতে বাড়তি মাত্রা যোগ করলো শালবনির তৃণমূল বিধায়ক শ্রীকান্ত মাহাতোর বক্তব্য। নিজের দলেরই এক অংশের উপর ক্ষোভ উগড়ে দিয়েছেন তিনি। মূলত দলের ‘সেলেব মহলকে’ কটাক্ষ করে তাঁকে বলতে শোনা গেছে, “জুন মালিয়া, মিমি, সায়ন্তিকা, উত্তরা সিং হাজরাদের মতো খারাপ লোকেরা যারা লুটে পুটে খাচ্ছে, তাঁরা যদি দলের (TMC) সম্পদ হয় তাহলে এই পার্টিটা আর করা যাবে না।” এই মন্তব্য সোশ্যাল মিডিয়ায় ছড়িয়ে পড়তেই তাঁর বিরুদ্ধে পদক্ষেপ নিয়েছে দল। শোকজ করা হয়েছে রাজ্যের ক্রেতা সুরক্ষা দফতরের ভারপ্রাপ্ত মন্ত্রী তথা শালবনির বিধায়ক শ্রীকান্ত মাহাতোকে।

প্রসঙ্গত, ‘মিমি-নুসরাতদের’ নিয়ে এমন অভিযোগ নতুন কিছু নয়। এর আগেও দলের(TMC) সেলেব্রেটি মহলের প্রতি নেতাকর্মীদের ক্ষোভ একাধিকবার প্রকাশ্যে আসতে দেখা যায়। শীর্ষ নেতৃত্বর হস্তক্ষেপে সেসব আবার মিটেও গেছে যথাসময়ে। কিন্তু মন্ত্রী শ্রীকান্ত মাহাতো আবার সে কথা বলছেন না। তাঁর অভিযোগ নাকি ‘কানেই তোলেনি’ দলের মাথারা। এই প্রসঙ্গে ভিডিওতে তাঁকে বলতে শোনা যায়, “অভিষেক বন্দ্যোপাধ্যায় থেকে শুরু করে সুব্রত বক্সি সবাইকে জানিয়েও সাড়া মেলেনি। দলের ‘খারাপ’ লোকেদের সায় দিচ্ছে শীর্ষ নেতৃত্ব।”

আরও পড়ুন: কেষ্টর যাতে কষ্ট না হয়! জেলেতেও অনুব্রতর ‘যত্ন’ নিচ্ছে সায়গল, খেয়াল রাখছে শরীরের

মহানগর বার্তার তরফে এই ভিডিওর সত্যতা যাচাই না করা হলেও, শ্রীকান্ত মাহাতোর এই ভিডিওর সত্যতা স্বীকার করে নিয়েছেন তৃণমূলের পশ্চিম মেদিনীপুরের কো-অর্ডিনেটর অজিত মাইতি। তিনি বলেন, ‘‘অভিষেক বন্দ্যোপাধ্যায় নির্দেশ দিয়েছেন। মন্ত্রী কিছু কথাবার্তা বলেছেন, যা ভিডিয়োর আকারে দলের কাছে পৌঁছেছে। যে কথাবার্তা একটু আপত্তিজনক। সেই জন্য গত কাল দলের নির্দেশে শ্রীকান্ত মাহাতোকে শোকজ করা হয়েছে। আজ উনি জবাবও দিয়েছেন। উনি দুঃখপ্রকাশ করেছেন।’’

আরও পড়ুন: সন্ধে ৭টার পর কাজ করানো যাবে না মহিলাদের! কর্মক্ষেত্রে কড়া নির্দেশিকা যোগী সরকারের

দলের(TMC) রাজ্য সাধারণ সম্পাদক তথা কুণাল ঘোষ এই ঘটনা প্রসঙ্গে বলেন, ‘‘যে কোনও ক্ষেত্রেই এমন দায়িত্ববণ্টনের ঘটনা ঘটলে ইতিবাচক প্রভাব পড়ে, আবার বিচ্ছিন্ন ভাবে কারও আলাদা বক্তব্যও থাকতে পারে। নেতৃত্ব সব দিক বিবেচনা করে সিদ্ধান্ত নেন। দল কোনও সিদ্ধান্ত জানালে তা দলের অনুশাসন এবং শৃঙ্খলার কারণে মেনে নেওয়াটাও রীতি। এটা স্বাভাবিক রীতি। এমন মন্তব্যে ভুল বোঝাবুঝি বাড়তে পারে। দল এই মন্তব্য অনুমোদন করে না।’’

সবার খবর সঠিক খবর পড়তে চোখ রাখুন মহানগর বার্তায়

Related Articles

Leave a Reply

Your email address will not be published.

Back to top button
নিজের লেখা নিজে লিখুন
Close
Close