রাজনীতিদেশ

সুশান্তের মৃত্যু নিয়ে ‘নোংরা রাজনীতি’ চলছে, বিস্ফোরক উদ্ধব ঠাকরে

মহানগরবার্তা ওয়েবডেস্ক: সুশান্ত সিং রাজপুতের মৃত্যু এবং তার পরবর্তী ঘটনাবলি নিয়ে এখনও জারি তরজা। অভিনেতার মৃত্যু হয়েছে প্রায় ছ-মাস হতে চলল, কিন্তু তাঁকে নিয়ে রাজনৈতিক তরজা থামল না এখনও। এদিন মহারাষ্ট্রের মুখ্যমন্ত্রী উদ্ধব ঠাকরে সুশান্ত মৃত্যু নিয়ে মুখ খুললেন। সেই সঙ্গে তরুণ অভিনেতার মৃত্যু নিয়ে যে রাজনীতি শুরু হয়েছে, বার্তা দিলেন তার বিরুদ্ধেও।

শুক্রবার সংবাদমাধ্যমের কাছে একটি সাক্ষাৎকারে উদ্ধব ঠাকরে জানান, সুশান্ত সিং রাজপুতের মতো অভিনেতার মৃত্যুতে তিনি অত্যন্ত দুঃখিত। তাঁর কথায়, “সুশান্তের মতো একজন তরুণ, প্রতিভাবান অভিনেতার মৃত্যু দুঃখজনক ঘটনা। কিন্তু কিছু কিছু মানুষ বিষয়টিকে নিয়ে রাজনীতি শুরু করেছেন।” পাশাপাশি এটা অত্যন্ত ‘নোংরা রাজনীতি’র উদাহরণ বলেও মন্তব্য করেন শিবসেনা নেতা উদ্ধব ঠাকরে।

বস্তুত, সুশান্ত সিং রাজপুতের মৃত্যু এবং তৎপরবর্তী ঘটনাবলী নিয়ে বলিউড অভিনেত্রী কঙ্গনা রানাওয়াতের সঙ্গে মহারাষ্ট্র সরকারের দ্বন্দ্ব অজানা নয় কারোর। সুশান্তের মৃত্যুর পর মহারাষ্ট্র সরকার বলিউডের একাংশকে আড়াল করতে চাইছে, এমনটাই দাবি করেন বলিউড ‘ক্যুইন’ কঙ্গনা রানাওয়াত। এরপরই শিবসেনার সঙ্গে শুরু হয় কঙ্গনার দ্বন্দ্ব। এদিন মুখ্যমন্ত্রী উদ্ধব ঠাকরে কি নাম না করে কঙ্গনাকেই বার্তা দিলেন? শুরু হয়েছে জল্পনা।

গত ১৪ই জুন জনপ্রিয় বলিউড অভিনেতা সুশান্ত সিং রাজপুতের ঝুলন্ত দেহ উদ্ধার করা হয় তাঁর বান্দ্রার ফ্ল্যাট থেকে। প্রিয় অভিনেতার এহেন আকস্মিক মৃত্যু মেনে নিতে পারেননি ভক্তকূল। এই নিয়ে যে তুমুল আলোড়ন সৃষ্টি হয়েছিল সোশ্যাল মিডিয়ায়, তার রেশ এখনও কাটে নি।

উল্লেখ্য, কঙ্গনা রানাওয়াত যখন মহারাষ্ট্র সরকারের বিরুদ্ধে সুশান্ত মৃত্যু নিয়ে একের পর এক তোপ দেগে চলেছেন, সেই সময় অভিনেত্রীর বিরুদ্ধে পালটা আক্রমণ করেন সেনা মুখপাত্র সঞ্জয় রাউত। এরপরই অভিনেত্রীর পালি হিলের অফিসে ভাঙচুর চালায় বিএমসি। বেআইনি নির্মাণের অভিযোগ ভাঙা হয়েছে বলা হলেও কঙ্গনার সঙ্গে দ্বন্দ্বের বহিঃপ্রকাশ হিসেবেই একে দেখেছেন বিশেষজ্ঞ মহল।

Tags

Related Articles

Leave a Reply

Your email address will not be published.

Back to top button
নিজের লেখা নিজে লিখুন
Close
Close