দেশ

“আমরা কোনো জাতিভেদ করি না, সকলের জন্য কাজ করি”, সমালোচকদের কড়া জবাব যোগীর

মহানগরবার্তা ওয়েবডেস্ক:হাথরাস কান্ডে ফের একবার উত্তর প্রদেশের পুলিশ প্রশাসনের প্রতি হওয়া সমালোচনার কড়া জবাব দিলেন মুখ্যমন্ত্রী যোগী আদিত্যনাথ। তিনি বললেন, প্রত্যেক প্রদেশের প্রশাসনই কাজ করেন জনগণের মঙ্গলের জন্য। তাঁদের কাজে কোথাও বিভেদ করা হয় না। মঙ্গলবার সংবাদমাধ্যমের সামনে একটি বিবৃতিতে একথা বলেছেন তিনি।

হাথরাস কান্ডে এযাবৎ বারবারই প্রশ্নের মুখে উঠে এসেছে উত্তর প্রদেশের পুলিশ প্রশাসনের ভূমিকা। যেহেতু এই ঘটনার মূল চার অভিযুক্তের সকলেই তথাকথিত উচ্চ বর্ণের প্রতিনিধি তাই তাঁদের প্রতি বিশেষ পক্ষপাত বশতই পুলিশ ও ক্ষমতাসীন সরকার তাঁদের বিরুদ্ধে ব্যবস্থা গ্রহণ করতে অনিচ্ছুক, অভিযোগ উঠেছে এমনটাই। এই ঘটনাকে কেন্দ্র করে মুখ্যমন্ত্রী যোগী আদিত্যনাথ পরিচালিত উত্তর প্রদেশের বিজেপি সরকারকে প্রবল আক্রমণে জর্জরিত করেছে একাধিক বিরোধী শিবির। অবশ্য এহেন অভিযোগের বিরুদ্ধে এর আগেও একাধিক বার মুখ খুলেছেন যোগী। বিরোধীদের আক্রমণের কড়া জবাব দিয়েছেন বারবার। এদিনও তার ব্যতিক্রম হল না। সংবাদমাধ্যমের সামনে একটি বিবৃতিতে এদিন মুখ্যমন্ত্রী যোগী আদিত্যনাথ বলেন, “আমাদের প্রদেশের ২৪ কোটি জনতার কথা মাথায় রেখেই আমরা যাবতীয় পরিকল্পনা এবং উদ্যোগ গ্রহণ করে থাকি। সেখানে কোনো ব্যক্তি, কোনো জাতির বিভাজন করা হয় না।” তিনি আরো বলেন, নির্দিষ্ট কোনো জাতি বা বর্ণের জন্য তাঁরা চিন্তা করেন না। “আমরা সকলের বিকাশ করবো। সকলকেই সুরক্ষা দেওয়ার ব্যবস্থা করব। কিন্তু কোনো একজনের সন্তুষ্টি বিধানের চেষ্টা করব না।” বলেন যোগী।

প্রসঙ্গত, গত মাসে উত্তর প্রদেশের হাথরাসে তথাকথিত নিম্ন বর্ণের এক তরুণীর গণধর্ষণের অভিযোগ ওঠে উচ্চ বর্ণের চার ব্যক্তির বিরুদ্ধে। টানা পনের দিন লড়াই করার পর দিল্লির সফদরজং হাসপাতালে তরুণীর মৃত্যু হলে সেদিনই রাতে তড়িঘড়ি তাঁর দেহ সৎকার করে ফেলে পুলিশ। শুধু তাই নয়, পীড়িত পরিবারের উপর নিরন্তর চাপ সৃষ্টি করার অভিযোগও ওঠে পুলিশের বিরুদ্ধে। ময়না তদন্তের রিপোর্টে জানানো হয় আদেও ধর্ষণ হয় নি, গুজব ছড়িয়েছে। পীড়িত পরিবারের সঙ্গে দেখা করতেও বাধা দেয় পুলিশ। প্রশাসনের এহেন ভূমিকায় নিন্দার ঝড় ওঠে গোটা দেশ জুড়ে। এদিন সেই নিন্দারই আরো একবার জবাব দিলেন যোগী আদিত্যনাথ।

হাথরাস কান্ডে ফের একবার উত্তর প্রদেশের পুলিশ প্রশাসনের প্রতি হওয়া সমালোচনার কড়া জবাব দিলেন মুখ্যমন্ত্রী যোগী আদিত্যনাথ। তিনি বললেন, প্রত্যেক প্রদেশের প্রশাসনই কাজ করেন জনগণের মঙ্গলের জন্য। তাঁদের কাজে কোথাও বিভেদ করা হয় না। মঙ্গলবার সংবাদমাধ্যমের সামনে একটি বিবৃতিতে একথা বলেছেন তিনি।

হাথরাস কান্ডে এযাবৎ বারবারই প্রশ্নের মুখে উঠে এসেছে উত্তর প্রদেশের পুলিশ প্রশাসনের ভূমিকা। যেহেতু এই ঘটনার মূল চার অভিযুক্তের সকলেই তথাকথিত উচ্চ বর্ণের প্রতিনিধি তাই তাঁদের প্রতি বিশেষ পক্ষপাত বশতই পুলিশ ও ক্ষমতাসীন সরকার তাঁদের বিরুদ্ধে ব্যবস্থা গ্রহণ করতে অনিচ্ছুক, অভিযোগ উঠেছে এমনটাই। এই ঘটনাকে কেন্দ্র করে মুখ্যমন্ত্রী যোগী আদিত্যনাথ পরিচালিত উত্তর প্রদেশের বিজেপি সরকারকে প্রবল আক্রমণে জর্জরিত করেছে একাধিক বিরোধী শিবির। অবশ্য এহেন অভিযোগের বিরুদ্ধে এর আগেও একাধিক বার মুখ খুলেছেন যোগী। বিরোধীদের আক্রমণের কড়া জবাব দিয়েছেন বারবার। এদিনও তার ব্যতিক্রম হল না। সংবাদমাধ্যমের সামনে একটি বিবৃতিতে এদিন মুখ্যমন্ত্রী যোগী আদিত্যনাথ বলেন, “আমাদের প্রদেশের ২৪ কোটি জনতার কথা মাথায় রেখেই আমরা যাবতীয় পরিকল্পনা এবং উদ্যোগ গ্রহণ করে থাকি। সেখানে কোনো ব্যক্তি, কোনো জাতির বিভাজন করা হয় না।” তিনি আরো বলেন, নির্দিষ্ট কোনো জাতি বা বর্ণের জন্য তাঁরা চিন্তা করেন না। “আমরা সকলের বিকাশ করবো। সকলকেই সুরক্ষা দেওয়ার ব্যবস্থা করব। কিন্তু কোনো একজনের সন্তুষ্টি বিধানের চেষ্টা করব না।” বলেন যোগী।

প্রসঙ্গত, গত মাসে উত্তর প্রদেশের হাথরাসে তথাকথিত নিম্ন বর্ণের এক তরুণীর গণধর্ষণের অভিযোগ ওঠে উচ্চ বর্ণের চার ব্যক্তির বিরুদ্ধে। টানা পনের দিন লড়াই করার পর দিল্লির সফদরজং হাসপাতালে তরুণীর মৃত্যু হলে সেদিনই রাতে তড়িঘড়ি তাঁর দেহ সৎকার করে ফেলে পুলিশ। শুধু তাই নয়, পীড়িত পরিবারের উপর নিরন্তর চাপ সৃষ্টি করার অভিযোগও ওঠে পুলিশের বিরুদ্ধে। ময়না তদন্তের রিপোর্টে জানানো হয় আদেও ধর্ষণ হয় নি, গুজব ছড়িয়েছে। পীড়িত পরিবারের সঙ্গে দেখা করতেও বাধা দেয় পুলিশ। প্রশাসনের এহেন ভূমিকায় নিন্দার ঝড় ওঠে গোটা দেশ জুড়ে। এদিন সেই নিন্দারই আরো একবার জবাব দিলেন যোগী আদিত্যনাথ।

Tags

Related Articles

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *

Back to top button
Close
Close