আন্তর্জাতিকদেশ

WHO এর মুখে ভারতের সুনাম, আরোগ্য সেতু অ্যাপ নিয়ে প্রশংসায় পঞ্চমুখ বিশ্ব স্বাস্থ্য সংস্থা

আরোগ্য সেতু অ্যাপের প্রশংসায় পঞ্চমুখ বিশ্ব স্বাস্থ্য সংস্থা।

 

এদেশের বিরোধীদের শত সমালোচনা সত্ত্বেও মোদি সরকারের তৈরি আরোগ্য সেতু অ্যাপের প্রশংসা করল বিশ্ব স্বাস্থ্য সংস্থা। বিশ্ব স্বাস্থ্য সংস্থার ডিরেক্টর জেনারেল টেড্রস আধনাম ঘেব্রেইসুস আরোগ্য সেতু অ্যাপের প্রশংসা করে জানিয়েছেন এটি ভারতবর্ষে করোনা মোকাবিলায় দারুন সহায়ক হয়েছে।

 

ভারতবর্ষে করোনা ছড়িয়ে পড়ার প্রথম পর্যায়ের কয়েক দিনের মধ্যেই কেন্দ্রীয় সরকার আরোগ্য সেতু অ্যাপ সাধারণ মানুষের জন্য নিয়ে আসে। এই অ্যাপ সরকারি-বেসরকারি সংস্থার কর্মীদের, সামরিক ও আধা সামরিক বাহিনীর সদস্যদের, প্রথম সারির করোনা যোদ্ধাদের ও কোভিড সংক্রমিত এলাকার বাসিন্দাদের ক্ষেত্রে বাধ্যতামূলক করা হয়েছিল। সেই সঙ্গে বিমান পরিষেবা ব্যবহারকারীদের ক্ষেত্রেও আরোগ্য সেতু অ্যাপকে বাধ্যতামূলক করা হয়। কিন্তু কিছুদিন পরেই বিরোধী রাজনৈতিক শিবির থেকে অভিযোগ উঠতে শুরু করে এই অ্যাপের মাধ্যমে সরকার নাগরিকদের ব্যক্তিগত পরিসরে হস্তক্ষেপ করার চেষ্টা করছে। এর মাধ্যমে নাগরিকদের যাবতীয় ব্যক্তিগত তথ্য সরকারের কাছে পৌঁছে যাচ্ছে বলেও অভিযোগ ওঠে। এনিয়ে দেশজোড়া প্রবল সমালোচনার ঝড় উঠলেও সরকার নিজের অবস্থানে অনড় ছিল। বিশ্ব স্বাস্থ্য সংস্থার মতে সরকারের এই দৃঢ় পদক্ষেপের সুফল পেয়েছে এই দেশ। এর ফলে করোনা ক্লাস্টার চিহ্নিত করতে ও কোভিড-১৯ টেস্টের সংখ্যা বাড়ানো সম্ভব হয়েছে। জানা গিয়েছে দেশের প্রায় ১৫ কোটি মানুষ এই অ্যাপটি ডাউনলোড করেছেন।

 

  1. আরোগ্য সেতু অ্যাপের মাধ্যমে করোনা সংক্রমণের প্রথম পর্যায়ে করোনা আক্রান্ত রোগীদের ওপর নজরদারি চালানো অনেক সহজ হয়েছিল। তারা যথাযথ হোম আইসোলেশনের নিয়ম মানছে কিনা তা বুঝতে পারা সম্ভব হয়, যার ফলস্বরূপ সংক্রমণ ছড়ানোর গতি রোধ করা গিয়েছে বলে বিশ্ব স্বাস্থ্য সংস্থার অভিমত। সেইসঙ্গে সম্ভাব্য আক্রান্তদের চিহ্নিত করে আলাদা করে কোয়ারেন্টিন করা ও তাদের করোনা টেষ্ট করাও সম্ভব হয়েছে।

Related Articles

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *

Back to top button
Close
Close