ভাইরাল

উইকিপিডিয়ায় দেখাচ্ছে আত্মহত্যা! খুন করা হতে পারে বলে গর্জে উঠলেন সুশান্তের বান্ধবী

মহানগর বার্তা ওয়েবডেস্কঃ সুশান্ত সিং রাজপুতের মৃত্যুর পর ঠিক চার মাস পূর্ণ হল আজ। গত ১৪ই জুন তাঁর ঝুলন্ত দেহ উদ্ধার করা হয়েছিল বান্দ্রার নিজস্ব ফ্ল্যাট থেকে। তারপর থেকে গুগলের উইকিপিডিয়াতে তাঁর মৃত্যুর কারণ হিসেবে লেখা হয়েছে ‘গলায় দড়ি দিয়ে আত্মহত্যা’র কথা। কিন্তু এবার তা নিয়ে প্রশ্ন তুললেন অভিনেতার এক পারিবারিক বন্ধু স্মিতা পারিখ।

বর্তমানে বলিউড অভিনেতা সুশান্ত সিং রাজপুতের এই আকস্মিক মৃত্যু রহস্যের তদন্ত করছে সিবিআই। কেন্দ্রীয় গোয়েন্দা সংস্থার তরফ থেকে এই ঘটনার খুন কিংবা আত্মহত্যায় প্ররোচনামূলক কোনো দিকই উড়িয়ে দেওয়া হয়নি এখনো। তাই তদন্তের মাধ্যমে প্রকৃত সত্য উদঘাটনের আগেই গুগলের উইকিপিডিয়ায় মৃত্যুর এহেন কারণ দেগে দেওয়ার বিরুদ্ধে সরব হয়েছেন পারিবারিক বন্ধু স্মিতা পারিখ। শুধু তাই নয়, তিনি উইকিপিডিয়ার এই তথ্যের পরিবর্তনের দাবি জানিয়ে দরখাস্তও করেছেন বলে জানা গেছে সূত্রের খবরে।

এ বিষয়ে মুখ খুলে স্মিতা পারিখ বুধবার তাঁর ট্যুইটার হ্যান্ডেলে একটি পোস্ট করেন। তিনি সেখানে লেখেন, “আমরা ওঁর (এসএসআর) জন্য ন্যায়বিচার চাই। সমস্ত অপরাধীকে জেলের গরাদের পিছনে দেখতে চাই আমরা।” শুধু তাই নয়, এ ব্যাপারে তাঁর তৈরি দরখাস্তে স্বাক্ষর করার জন্যেও সুশান্ত ভক্তদের আহ্বান জানিয়েছেন তিনি।

নিজের ফেসবুক পেজে স্মিতা পারিখ লিখেছেন, “ওঁর কিছু নিজের লোকই ওঁর সঙ্গে বিশ্বাসঘাতকতা করেছে। আমাদের ওঁকে দরকার ছিল। গোটা পৃথিবীর ওঁকে দরকার ছিল। কিন্তু ওঁর ইন্ডাস্ট্রি চুপ করে থেকে ওঁকে মৃত্যুর দিকে ঠেলে দিয়েছে।”

নিজের দরখাস্তে তিনি লিখেছেন, “সুশান্ত সিং রাজপুতের মৃত্যুর কারণ এখনো তদন্ত সাপেক্ষ। তাহলে কেমন করে একে আত্মহত্যা বলে ঘোষণা করে দেওয়া হয়? তিনি কোনো সুইসাইড নোট রেখে যান নি, এবং তাঁর গলায় দড়ি দেওয়ার কোনো প্রত্যক্ষ সাক্ষীও নেই।” সেখানে আরো বলা হয়, “ওঁর পরিবার মনে করেন ওঁকে খুন করা হয়েছে, ওঁর এত ভক্ত দিনের পর দিন প্রতিবাদ করে চলেছেন।” বস্তুত, যতদিন না তদন্ত সম্পূর্ণ হচ্ছে ততদিন পর্যন্ত উইকিপিডিয়ায় অভিনেতার মৃত্যুর কারণে ‘তদন্ত সাপেক্ষ’ লিখে রাখার দাবি জানিয়েছেন স্মিতা পারিখ।

প্রসঙ্গত উল্লেখ্য, অভিনেতা সুশান্ত সিং রাজপুতের মৃত্যুর পর থেকেই আকস্মিক এই মৃত্যু সন্দিহান করে তুলেছিল একাধিক ভক্তকে। তোলপাড় শুরু হয়েছিল সোশ্যাল মিডিয়া জুড়ে। কিছুদিন আগেই এইমসের তরফ থেকে জানানো হয়েছিল অভিনেতা নিঃসন্দেহে আত্মহত্যা করেছেন, এর পিছনে খুনের কোনো প্রমাণ মেলে নি। কিন্তু এই ঘোষণা শান্ত করতে পারে নি সুশান্ত ভক্তদের। এখনও তাঁরা প্রিয় অভিনেতার প্রতি সুবিচারের আশায় দিন গুনে চলেছেন।

Related Articles

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *

Back to top button
Close
Close